শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:১৭ পূর্বাহ্ন

দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭১১৫৭৬৬০৩
সংবাদ শিরোনামঃ
দুটি আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতি পেলেন প্রথম সারির করোনা যুদ্ধা জহিরুল হক বিল্লাল আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতি পেলেন এড. মো: আয়ুবুর রহমান ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকসহ আটজন গ্রেপ্তার কর্মকর্তার অবহেলায় গৃহহীনরা পায়নি প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর!  বর্ষাকালে ত্বকের সুস্থতার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ গুরুদাসপুরে পীরপাল মাজার শরীফের অর্থআত্মসাত ও গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ সাবেক খাদেমের বিরুদ্ধে নাসিরনগরে ” বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি” পালিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসামীর ছুরিকাঘাতে দারোগা নিহত কেবল মাইকেই স্বাস্থ্যবিধির প্রচারণা, বাস্তবে উল্টো চিত্র! ভ্রুণ হত্যাকারী প্লাবনের গ্রেপ্তার দাবীতে নাসিরনগরে মানববন্ধন
আজীবন জনগণের সেবা করে যেতে চাই ..মোসাঃ পাপিয়া আক্তার

আজীবন জনগণের সেবা করে যেতে চাই ..মোসাঃ পাপিয়া আক্তার

মেম্বার পদ প্রার্থী সংরক্ষিত মহিলা আসন ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ড

আসন্ন মূলনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, জাজিরা, শরীয়তপুর।

 

এফ হোসেন শরীয়তপুর থেকে: মোসাঃ পাপিয়া আক্তার একজন উদীয়মান সমাজসেবক। আসন্ন শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার মূলনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সংরক্ষিত মহিলা আসন ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের একজন মেম্বার প্রার্থী হিসেবে হেলিকপ্টার মার্কায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতেছেন। মোসাঃ পাপিয়া আক্তার শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার পশ্চিম ছাব্বিশ পাড়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৮৮ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। পিতা মোঃ আবু তালুকদার ও মাতা হনুফা বেগম। মোসাঃ পাপিয়া আক্তার সবসমই নিজেকে মানব সেবায় নিয়োজিত রাখতে পছন্দ করতেন। ছোটবেলা থেকেই তার গরীব দুখি মানুষের প্রতি গভির ভালোবাসা এবং সমাজ সেবামুলক কাজের প্রতি আগ্রহ। তিনি একজন শিক্ষানুরাগী, সমাজসেবক ও জনদরদী তিনি এলাকার শিক্ষা, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও উন্নয়ন করে এলাকায়া একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চান। তার ইচ্ছে সম্পর্কে বলেন, অধিকার বঞ্চিত দুস্থ মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আজীবন কাজ করে যাওয়া। এলাকা ও এলাকাবাসীর উন্নয়নে কাজ করে যাওয়া এবং জনসেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখা । তিনি ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে শ্রদ্ধা ও ভালোবেসে জনগণের প্রতি দরদ, ভালোবাসা ও নিষ্ঠার সঙ্গে নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করতে চান।  তবে এর জন্য জনগণের কাছে ভোটের মাধ্যমে যেন তাকে নির্বাচিত করা হয় এ আশা ব্যক্ত করেন। তার স্বামী পেশায় একজন সৎ ও আদর্শবান সাংবাদিক, তাছাড়া স্বামীর উৎসাহ ও অনুপ্রেরণায় তিনি সেবামূলক কাজের প্রতি আরো বেশি উৎসাহিত হন। তিনি স্বামীর আদর্শ, উৎসাহ  ও অনুপ্রেরণায় এক জন দক্ষ জনপ্রতিনিধি হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে গরীব দুঃখি, অসহায় মানুষের পাশে দারাতে ও এলাকার উন্নয়ন করতে চান। তিনি এলাকার উন্নয়নে একজন নিবেদিত প্রাণ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। আর সে প্রতাশাকে বাস্তবায়নের জন্যই তার এ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া। তিনি বলেন, প্রতিটি সেক্টরে নারীরা অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে, কিন্তু এখনো নারীরা অনেকটা অবহেলিত, তাই তাদেরকে সচেতন করে গড়েতোলা। একজন নারী হিসেবে অন্য একজন নারীকে সচেতন করা তার কর্তব্য বলে মনেকরেন। তাই অবহেলিত নারীদের পাশে থেকে এবং তাদেরকে সব বিষয়ে সাহায্য সহযোগিতা করতে চান। এ মন মানসিকতা নিয়েই তার নির্বাচন করা বলে তিনি জানান। তিনি কেন নির্বাচনে প্রার্থী হলেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিন বলেন, আমি দেখেছি আমার স্বামী কিভাবে দরদ, ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা দিয়ে মানুষকে ভালোবাসতেন, সেবা করতেন। তার কাছ থেকেই মূলত আমি একাজে উদ্বুদ্ধ হয়েছি। তাছাড়া মানুষ মানুষের জন্য। আর জনসেবার মধ্যে একধরনের আত্মতৃপ্তি আছে এবং মানুষ মরনশীল। মৃত্যুর আগে কিছু ভালো কাজের স্মৃতি রেখে যেতে চাই। সে জন্যই মৃতুর আগ পর্যন্ত জনগণের সেবা করে যেতে চাই।

আপনি নির্বাচিত হলে এলাকাবাসী বা জনগণের জন্য কি ধরণের কাজ করবেন জানতে চাইলে তিন বলেন, যদি জনগণ আমাকে ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করেন তাহলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যে সকল কজ করো তা হলো,  শিশু, যুব, কিশোর, মহিলা, বয়স্ক, দুঃস্থ, প্রতিবন্ধীদের কল্যাণসহ পিছিয়েপরা জনগোষ্ঠীকে, গণশিক্ষা স্বাস্থ্য সেবা সর্ম্পকে সচেতন করে তাদের উন্নয়নে কাজ করবো।

বেকার, অসহায় নারীদের মৎস, পশু, পোলট্রি, মাশরুম কম্পিউটারসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রদান এবং এগুলো বাস্তবায়নের সহযোগিতায় অগ্রণী ভুমিকা পালন করবো।

শিক্ষার হারকে বৃদ্ধিকরার লক্ষ্যে বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্র স্থাপন ও শিশুদের স্কুলে পাঠানোর ব্যাবস্থা করবো। বিশেষ করে নারী শিক্ষার হার বৃদ্ধি করণের ব্যবস্থা করবো।

নারী নির্যাতন বা দাম্পত্য কলহ রোধে সর্বাতœক ভুমিকা পালন করবো। বাল্যবিয়ে, যৌতুক নারী নির্যাতন এর কুফল সর্ম্পকে সচেতন করে বাল্যবিয়ে রোধের ব্যবস্থা করবো।

পরিবেশ উন্নয়নে ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার্থে বনায়ন, নিরাপদ পানি, স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিশ্চিত করনে ওয়াটার এন্ড সেনিটেশন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বাস্তবায়ন এবং সামাজিক ভারসাম্য রক্ষার্থে ফলোজ, বনোজ, নার্সারী বৃক্ষ রোপনে উদ্বুদ্ধ করনের কাজ করে যাব।

এছাড়া ওয়ার্ডে আওতাধীন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান যেমন এলাকার স্কুল- কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির ও রাস্তা-ঘাট বিষেশ করে অবহেলিত ও পিছিয়েপড়া জনগোষ্ঠির জন্য আন্তরিক ভাবে কাজ করে যাব। এলাকার রাস্তা-ঘাট উন্নয়ন, দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে স্যানিটেশন সুবিধা নিশ্চিত করন। পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়নে বৃক্ষ রোপন করা। ইউনিয়নের সামাজিক ও সাং¯ৃ‹তিক সংগঠনগুলো উন্নয়নে কাজ করবো।

আর্সেনিক সর্ম্পকে জনগণকে সচেতন করে স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি করবো। মাদকের কুফল সর্ম্পকে এলাকার জনগণকে সচেতন করে তা রোধ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

এলাকাবাসীর কাছে দাবি জানান যে, তার এ ভালো কাজে এলাকাবাসী ও জনগণ তারপাসে থেকে উৎসাহ, অনুপ্রেরণা, পরামর্শ দিয়ে পাসে থাকবেন। তার ভালো কাজে উৎসাহ দিতে জনগণ তাকে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে পেতে চান বলে জানান তিনি আরো যানান নির্বাচনে অনেকেই টাকার মাধ্যমে ভোট নিয়ে নির্বাচিত হতে চায়, এলাকাবাসী ও ভোটাররা সচেতন থাকবেন। আপনাদের বিবেকের কাছে আমার প্রশ্ন থাকলো যারা টাকার মাধ্যমে বিজয়ী হতে চায় বা কালো টাকার যোরে যদি কেউ বিজয়ী হয়ে আপনাদের মাঝে আসে সে আপনাদের জন্য কতটুকু কাজ করবে বা করার মনমানসিকতা রাখবে। যাহোক আপনাদের কাছে আমার জোর দাবি আপনারা কোন প্রার্থী কাছথেকে সামান্য কিছু অর্থের বিনীময়ে নিজেদের ভবিষ্যত, বিবেককে বিকিয়ে দিবেন না। যারা জনগণের জন্য কাজকরতে চায় তারা কখনোই কালোটাকার মাধ্যমে বিজয়ী হতে চাইবে না। আপনারা কোন অযোগ্য ব্যক্তির হাতে আপনাদের ভাগ্যকে কোন অযোগ্য লোকের হাতে তুলে না দেন।

সর্বশেষ সম্মানিত ভোটার বৃন্দ যদি আমাকে তাদের ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করেন তাহলে চলমান উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে প্রতিশ্রুতির নতুন নতুন কাজগুলো সম্পন্ন করার লক্ষে আপনাদের মূল্যবান ভোট হেলিকপ্টার মার্কায় দিয়ে জয়যুক্ত করবেন এবং আপনাদের পাশে রেখে সুখে-দুঃখে সেবা করার সুযোগ দিবেন ইন্শাআল্লাহ। পরিশেষে তিনি এলাকাবাসী তথা ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডবাসীর কাছে আমার শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও সালাম রইলো

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Design: About IT
x Close

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

Shares
CrestaProject