শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন

দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭১১৫৭৬৬০৩
সংবাদ শিরোনামঃ
দুটি আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতি পেলেন প্রথম সারির করোনা যুদ্ধা জহিরুল হক বিল্লাল আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতি পেলেন এড. মো: আয়ুবুর রহমান ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকসহ আটজন গ্রেপ্তার কর্মকর্তার অবহেলায় গৃহহীনরা পায়নি প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর!  বর্ষাকালে ত্বকের সুস্থতার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ গুরুদাসপুরে পীরপাল মাজার শরীফের অর্থআত্মসাত ও গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ সাবেক খাদেমের বিরুদ্ধে নাসিরনগরে ” বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি” পালিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসামীর ছুরিকাঘাতে দারোগা নিহত কেবল মাইকেই স্বাস্থ্যবিধির প্রচারণা, বাস্তবে উল্টো চিত্র! ভ্রুণ হত্যাকারী প্লাবনের গ্রেপ্তার দাবীতে নাসিরনগরে মানববন্ধন
করোনা আতঙ্কের মাঝেও হিজরাদের রমরমা বানিজ্য

করোনা আতঙ্কের মাঝেও হিজরাদের রমরমা বানিজ্য

বি এস বাপ্পি, আশুলিয়া প্রতিনিধি:

দিন যত গড়াচ্ছে করোনা আতঙ্ক ততই বাড়ছে। সাধারণ কর্মহীন মানুষ কোন রকম খেয়ে পরে বেঁচে আছে। চারিদিকে যখন হা হুতাশ, বাঁচার জন্য মানুষের আকুতি, তার মাঝে ও থেমে নেই হিজরাদের রমরমা বানিজ্য। ৩ই মে সোমবার সকালে আশুলিয়া থানার অন্তর্গত মোজারমেইল বাসস্টপের কাঠাল বাগান এলাকায় নাসরিন জাহান ও ইউসুফ রানা তাদের নবজাত কন্যা সন্তানকে মেডিকেল থেকে নিজেদের ভাড়া বাসায় নিয়ে আসেন। কিন্তু হিজরা সংগঠনের নিজস্ব দালাল চক্রের খোঁজে সকালেই তারা ভাড়াবাড়ীতে হানা দেয়। দশহাজার টাকার দাবিতে অনড় হিজরারা অবস্থান নেয় বাড়ির ম্যানেজার কালাম সরদারের বারান্দায়।

ম্যানেজার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে তারা অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন ও বিভিন্ন খারাপ ভাষা প্রকাশ করতে থাকে। বিষয়টি সরজমিনে প্রত্যক্ষকালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে মানবজীবন২৪ টিম বাড়ির মালিককে ফোন করে বিষয়টি সুরাহা করার অনুরোধ জানায়। তিনি ফোনে তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেন, এক পর্যায়ে বাড়ির মালিকও হাল ছেড়ে দেন। অগ্যতা আরও একজন অসহায় বাবাকে বলি হতে হলো হিজরাদের ভয়াল থাবায়। জৈনক বাবা মোঃ ইউসুফ রানা সম্প্রতি মেডিকেল বিল পরিশোধ করে এলেন ৩২০০০ হাজার টাকা। আরও বিভিন্ন ডাক্তারী পরামর্শ, নিয়মমাফিক রোগীর রক্ষণাবেক্ষণ, পরিচর্যা ও ঔষধ সেবন বাবদ কতটাকা গুনতে হবে তার হিসাব নেই।

প্রকাশ্যে ডাকাতির স্বীকার বাবা মোঃ ইউসুফ রানা কান্না বিজড়িত কন্ঠে বলেন আল্লাহ এ অন্যায় সইবেনা। বাড়ির ম্যানেজারের কাছে বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনিও আক্ষেপ নিয়ে বলেন, “হিজরারা এই এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত মানুষকে হয়রানি করে আসছে। এর আগেও তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে প্রতিরোধ করার চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু হিজরা সংগঠনের সহায়তায় তারা পার পেয়ে যায়। গতবছর একবার এক দম্পতি তাদের অত্যাচারের শিকার হয়েছিলেন এবং হিজরাদের মেরে তাড়িয়েও দিয়েছিলেন। শেষপর্যন্ত হিজরারা দলবলে ২০০ হিজরা সমেত ঐ দম্পতির উপর হামলা চালায়।  তাদের বিরুদ্ধে কোন মামলা করারও নিয়ম নেই। আমরা এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Design: About IT
x Close

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

Shares
CrestaProject