সাংবাদিকতায় আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন: ০১৭১১৫৭৬৬০৩
  • সকাল ১১:০৪ | ২৯শে মার্চ, ২০২০ ইং , ১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ প্রয়োজন

 

গাজীপুরের কাপাসিয়ার ঘোসের কান্দি গ্রামের ৯০ বছরের বৃদ্ধা  আছিয়া খাতুনের সম্পত্তি দখলের জন্য ভূমি দস্যুরা বাসভবন ভাঙচুর ও গাছকেটে লুটপাট করেছে

নাজিমুদ্দিন আহমেদ: গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানার ঘোসেরকান্দি গ্রামের আছিয়া খাতুন ভূমি দস্যু সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলাা করার পর চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আছিয়া খাতুন ঘোসেরকান্দি গ্রামের তার তফসিল বর্ণিত সম্পত্তি ১৯৮৭ সনের ৩ ডিসেম্বর পিতার নিকট হতে হেবা দলিল মূলে প্রাপ্ত হয়ে ভোগ দখল করছেন। ঐ সম্পত্তিতে তিনি বৃক্ষরোপন করেছেন। এদিকে আছিয়া খাতুনের হেবা দলিল মূলে প্রাপ্ত সম্পত্তি দখল করার জন্য প্রায় হুমকি দিতে থাকে রমিজ, মাইনুদ্দিন, হাসমত, পিতা-মৃত সিরাজ উদ্দিন। নাদিম-পিতা-রমিজ উদ্দিন, সবুজ-পিতা-মৃত হযরত আলী, লিটন, শওকত, খোকন-পিতা-মৃত হযরত আলী, শাহিদুল্লাহ-পিতা-মৃত কর্জ্জত আলী, মাহমুদা-স্বামী শাহিদুল্লাহ ঘোসেরকান্দি (ঈদগাহ বাজার) থানা-কাপাসিয়া, জেলা-কাপাসিয়াসহ অজ্ঞাতনামা আরও ২০-২৫ জন। জানা গেছে, আছিয়া খাতুন তার নিজস্ব সম্পত্তি থেকে সরে না যাওয়াতে গত ২০১৯ সনের ১৩ ডিসেম্বর ভূমি দস্যুরা ঢাকা থেকে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে মূল্যবান গাছ কাটা এবং বাড়ির জিনিসপত্র ভাঙচুর করে। ঐ সময় সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা এ ধরনের ভাঙচুরের এবং গাছ কাটার প্রতিবাদ করলে তারা মধ্যযুগীয় বর্বরতায়  নির্মমভাবে আছিয়া খাতুন ও বিল্লাল হোসেনের উপর হামলা চালায়। হামলার শেষে সন্ত্রাসীরা আছিয়া খাতুন এবং বিল্লাল’কে হুমকি দেয় সম্পত্তি না ছাড়লে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হবে। আছিয়া খাতুনের  অতর্কিত হামলা হওয়াতে চিকিৎসার জন্য এলাকাবাসী তাকে কাপাসিয়া স্বাস্থ্য  কমপ্লেক্স এ ভর্তি করায়।

এবিষয়ে আছিয়া খাতুনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি আমাদের প্রতিবেদককে জানান আমি কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর রমিজ, মাইনুদ্দিন, হাসমত, পিতা-মৃত সিরাজ উদ্দিন। নাদিম-পিতা-রমিজ উদ্দিন, সুবজ-পিতা-মৃত হযরত আলী, লিটন, শওকত, খোকন-পিতা-মৃত হযরত আলী, শাহিদুল্লাহ-পিতা-মৃত কর্জ্জত আলী, মাহমুদা-স্বামী শাহিদুল্লাহ ,তাদের বিরুদ্ধে কাপাসিয়া থানায় মামলা করতে গেলে আসামী পক্ষের প্রভাবের কারণে থানা কর্তৃপক্ষ মামলা নেননি। আছিয়া খাতুন আমাদের প্রতিবেদককে বলেন, থানা কর্তৃপক্ষ মামলা না নেওয়াতে ২০১৯ সনের ১৯ ডিসেম্বর গাজীপুর আদালতে গিয়ে  আমি বাদীনি হয়ে মামলা করতে বাধ্য হয়। মামলার ধারা ১৪৩/৪৪৭/৪৪৮/৩২৩/৩৭৯/৩২৫/৩০৭/৫০৬/৪২৭/৩৪ দন্ডবিধি। আছিয়া খাতুন আমদের প্রতিবেদককে বলেন আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। ন্যয় বিচার পাব। যাদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছি তারা দুপুর ১.০০টা থেকে ৫.০০ টা পর্যন্ত আমার মূল্যবান গাছ কেটে ফেলে ও ভাঙচুর করে। আমার বসত বাড়ির গাছপালা কেটে ফেলার সময় প্রশাসনের কেউ এগিয়ে আসেনি। আবার যারা এগিয়ে আসতে চেয়েছিল তারা সন্ত্রাসীদের ভয়ে এগিয়ে  আসার সাহস পায়নি।

আছিয়া খাতুনের নাতি মোঃ বিল্লাল হোসেন আমাদের জানান, সেদিন আসামীরা আমার উপরেও অতর্কিত হামলা চালায়। আমিও সেদিন তাদের হামলায় আহত হয়ে কাপাসিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হই। নানী ও আমি একই হাসপাতালে চিকিসাধীন ছিলাম। ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। আশা করি  আদালতের মাধ্যমে আমরা ন্যায় বিচার পাবো।  এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন ঘোসেরকান্দিস্থ ৭৮ নং  খতিয়ানের মোট  জমি ৮ শতাংশ, হেবারকৃত জমি ৫.২৫ শতাংশ।

আমাদের প্রতিবেদক সরজমিনে আছিয়া খাতুনের বাসায় গিয়ে দেখতে পায় সন্ত্রাসীরা মূল্যবান গাছ কেটে  নিয়ে যায়। টয়লেট ভাঙচুর করে,বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করে। বিদ্যুৎ মিটার ভেঙে ফেলাতে এখন বিল্লাল’কে তার পরিবার নিয়ে রাতের অন্ধকারে বসবাস করতে হচ্ছে। বিল্লালের খালা মরিয়ম এধরনের ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন। মরিয়ম আরও বলেন, প্রায় ৬০ জন সন্ত্রাসী অবৈধভাবে জমি দখলের জন্য ভাঙচুর করলেও পুলিশ এগিয়ে আসেনি।

এ বিষয়ে কাপাসিয়া থানার ওসি রফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি আমাদের জানান, আছিয়া খাতুনের বাসায়  হামলার ঘটনা আমি জানি না। ঘোসেরকান্দি গ্রামের বাসিন্দারা জানান ঘটনার সময়  এলাকার লোকজন সন্ত্রাসীদের ভয়ে এগিয়ে আসেনি। এ ধরনের ঘটনার আমরা বিচার চাই। বিচার হলে সন্ত্রাসীরা এ ধরনের অপরাধ করার সাহস পাবে না। এখানে উল্লেখ্য যে, বিল্লালের মা রাজিয়া বেগম কাতারে চাকুরি করছেন। ৪ বছর চাকুরি করে যে  অর্থ উপার্জন করেছেন সবই তিনি ঘোসেরকান্দি গ্রামের বাড়ি নির্মানের কাজে খরচ করেছেন। ঘটনা জানার পর রাজিয়া বেগম মানষিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। জানা গেছে, অর্থ খরচ করে রাজিয়া বেগম ঘর নির্মাণ করলে  ভূমি দস্যুরা এখন তা দখল করার পায়তাঁরা করছে। রাজিয়া বেগম আশা করেন যারা তার মা আছিয়া খাতুন এবং আমার ছেলে বিল্লাল ও গোলাপের উপর হামলা করে ভাঙচুর লুটপাট করেছে আদালতের রায়ে আমরা ন্যায় বিচার পাবো।

মন্তব্য:- চার ঘন্টা যাবৎ ভূমি দস্যুদের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা লুুটপাট,ভাঙচুর গাছ কাটলেও কাপাসিয়া থানার পুলিশকে দেখা যায়নি। সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় যারা এ ধরনের ঘটনার জন্য দায়ী তাদের বিরুদ্ধে আছিয়া খাতুন মামলা করতে গেলেও থানা কর্তৃপক্ষ মামলা নেননি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি যাতে না ঘটে এ জন্য পুলিশ প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে। যেখানে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি ঘটার সময় থানা কর্তৃপক্ষ এগিয়ে আসেন না, এমনকি অপরাধীদের বিরুদ্ধে মামলা করতে চান না। তাহলে আমরা কিভাবে বলবো আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি হবে না। সুশীল  সমাজ মনে করছেন এই ধরনের নিরীহ পরিবারের নিরাপত্তার জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। কারণ এ পরিবারটি ভূমি দস্যুদের কবলে পড়ে চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন।

Play
Play
previous arrow
next arrow
Slider

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথে একটি বড় বাধা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছিল। এই ধারার কারণে বহু সাংবাদিককে হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে অনেক মামলা হয়েছে। অনেককে কারাগারেও যেতে...

    ১৭ই মার্চ, ১৯২০ সালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় শেখ লুৎফুর রহমান এবং সায়রা বেগমের ঘরে জন্ম নেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ছয় ভাইবোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। গোপালগঞ্জ...

previous arrow
next arrow
ArrowArrow
Slider

  …..ইঞ্জিনিয়ার চৌধুরী নেসারুল হক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বরাট জনকল্যাণ ফাউন্ডেশন   জীবনের ক্ষুধা, তৃষ্ণা ছাড়াও, মানুষ এক কাল্পনিক জগতের চাহিদায় যেন সদা ব্যাকুল। কল্পনা যখন বাস্তবে শিল্পসম্মতভাবে প্রকাশ পায় তখন...

Archives

Apr0 Posts
May0 Posts
Jun0 Posts
Jul0 Posts
Aug0 Posts
Sep0 Posts
Oct0 Posts
Nov0 Posts
Dec0 Posts
Jan0 Posts
Feb0 Posts
Mar0 Posts
Apr0 Posts
May0 Posts
Jun0 Posts
Jul0 Posts
Aug0 Posts
Nov0 Posts
L0go

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি