সাংবাদিকতায় আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন: ০১৭১১৫৭৬৬০৩
সর্বশেষ সংবাদ
  • সকাল ১১:৩৩ | ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

Monthly Archive :জুলাই ২০১৯

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মসজিদে অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে মানববন্ধন

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরে গভীররাতে মসজিদে অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। গতকাল বুধবার প্রেস ক্লাবের সামনে অগ্নিসংযোগকারীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার, উগ্রবাদী হিন্দু সংগঠন নিষিদ্ধের দাবী এবং প্রিয়া সাহা কর্তৃক ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিকট বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ প্রদানের প্রতিবাদে এদারায়ে তালিমিয়্যাহ (কওমী মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড)  ব্রাক্ষণবাড়িয়ার উদ্যোগে এই  মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুসিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মোবারক উল্লাহ’র সভাপতিত্বে মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কওমী মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের সহ-সভাপতি আল্লামা শায়খ সাজিদুর রহমান, বোরহান উদ্দিন আল মতিন, বোরহান উদ্দিন কাসেমী, মুফতি এনামুল হাসান, মুফতি আব্দুল হক, মাওলানা আনোয়ার বিন মুসলিম, মুফতী জাকারিয়া খান, মাওলানা ইউসুফ ভুইয়া, মাও. আতহার আলী, জাকির হোসাইন, মাও. জুনায়েদ কাসেমী, মাও. মাসুদুর রহমান খান, মাও. ইসহাক আল মামুন, সৈয়দ মো. কাশেম, মাওলানা আবদুল মমিন ফুয়াদ, কওমী ছাত্র ঐক্য পরিষদের মাও. আশরাফুল ইসলাম, মাও. মোহাম্মদ আলী, মাও. কাওছার আহমদ, মাও. আবু বক্কর সিদ্দিক প্রমুখ।

মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে বক্তাগণ বলে, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। এখানে মুসলমান হিন্দু সহ বিভিন্ন ধর্মের অনুসারীরা সহাবস্থান করে আসছে দীর্ঘ সময় ধরে। কিন্তু আজ মুসলমান-হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে একটি মহল ধর্মীয় দাঙ্গা বাধিয়ে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করতে নানামুখী ষড়যন্ত্র আর চক্রান্ত করে যাচ্ছে। বক্তাগণ হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, মেড্ডার শান্তিবাগ জামে মসজিদে যারা অগ্নিসংযোগ করেছে তারা চতুষ্পদ জন্তুর চেয়েও নিকৃষ্ট। অবিলম্বে তাদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করতে হবে। অন্যথায় এরজন্য কোনো প্রকারের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে প্রশাসনকেই সকল দায় দায়িত্ব নিতে হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ জুলাই বুধবার গভীর রাতে জেলা শহরের পূর্ব মেড্ডার শান্তিবাগ এলাকায় একটি মসজিদে দুর্বিত্তরা আগুন দেয়। এতে মসজিদে ২৪টি সিলিং ফ্যান, ৭০ হাজার টাকার কার্পেট, মরদেহ ধোয়া ও বহনের খাটিয়া, চেয়ার, মাদুরসহ ২৫ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

নদীভাঙন রোধ করা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ : পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া:
যে সমস্ত এলাকায় নদীভাঙন আছে, সেখানে বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে ভাঙন রোধ করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ। তাই আমরা বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে নদীভাঙন রোধের চেষ্টা করছি। কিন্তু আপনাদেরকে ধৈর্য ধরতে হবে। আজকে বলে গেলে কালকে থেকেই কাজ শুরু হবে না। আমাদেরকে সময় দিতে হবে।

গতকাল রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার নদীভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করতে এসে উপজেলার বীরগাঁও ইউনিয়নের নজরদৌলত গ্রামে আয়োজিত এক সভায় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এসব কথা বলেছেন।

মন্ত্রী আরো বলেন,আমরা ভাটির দেশের লোক, যখন আমাদের প্রতিবেশী দেশের পাহাড় থেকে ঢল নামে তখন আমাদের এখানে নদীপাড়ের ঘর-বাড়ি বিলীন হয়ে যায়। আর এজন্যই নদীভাঙন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুবই চিন্তিত থাকেন।

নদীভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন এবং জনসভায় বক্তৃতাকালে মন্ত্রীর সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক মো. মাহফুজুর রহমান, নবীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাসুম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম.এ হালিম প্রমুখরা উপস্থিত ছিলেন।

নবীনগর পূর্বাঞ্চলের কৃষকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সরকারি মূল্যে ধান সংগ্রহ 

মোহাম্মদ হেদায়েতউল্লাহ্ নবীনগর খেকে:

শনিবার সকাল থেকে দিনব্যাপী ব্রাহ্মণবাড়ীয়া নবীনগর উপজেলার নাটঘর , বিদ্যাকুট , বিটঘর ইউনিয়ন এবং কুড়িঘর নান্দুরা -সহ বিভিন্ন গ্রাম থেকে প্রতৃক কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সরকারি মূল্যে ২৬ টাকা কেজি দরে ধান সংগ্রহ করা হয়েছে । এতে শতশত প্রকৃত কৃষক লোকসানের হাত থেকে রক্ষা পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সে সময় উপস্থিত ছিলেন তাছলিমা আক্তার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এল.এস.ডি নবীনগর , মোঃ সামছুল হুদা উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ নবীনগর , মোঃ গিয়াসউদ্দিন নাঈম উপসহকারী কৃষি অফিসার নাটঘর জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নাটঘর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম , বিদ্যাকুট ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক ভিপি এনাম , বিটঘর ইউপির চেয়ারম্যান হাজ্বী আবুল হোসেন , এরশাদুল ইসলাম, আব্দুস সালাম মেম্বার, মোরশেদ মেম্বার, হাসান মেম্বার, স্বপন মেম্বার, ফাতেমা বেগম, রেহেনা বেগম। এ সময় কৃষকরা বলেন – “আমরা অনেক খুশি, ২৬ টাকা কেজি দরে ধান বিক্রি করতে পেরে আমরা আরো উৎসাহিত হব কৃষি কাজের জন্য”।

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে শিশুপুত্রকে হত্যা করলেন পাষণ্ড পিতা

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
পাষণ্ডতা কাকে বলে, তা বুঝিয়ে দিলেন মো. মোসাঈদ মিয়া নামের এক পিতা। প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ঔরষজাত শিশুপুত্র মোরসালিন মিয়াকে (১০) করলেন হত্যা। তারপরও নিজে ফেঁসে যাবেন এই ভয়ে ঘটনাটি ‘ছেলেধরা  চক্রের কাজ’ বলে চালিয়ে দিতে কেটে দেন গলার রগ। সকল অপচেষ্টাই হলো ব্যর্থ, উল্টো নিজেই ফেঁসে গেলেন। পালাতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়ে সোপর্দিত হলেন পুলিশে। নারকীয় অার পৈশাচিকতাময় ঘটনাটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলা এলাকার।

রোববার রাতে উপজেলার ধরমণ্ডল ইউনিয়নের ধরমণ্ডল গ্রামে ঘটলো এই পাষণ্ডতা। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানোসহ সন্তান হন্তারক মোসাঈদ মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে। বর্বরোচিত এ ঘটনায় পুরো এলাকাজুড়ে সৃষ্টি হয়েছে চাঞ্চল্য।

নিহতের পরিবার, স্থানীয় এলাকাবাসী এবং পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ধরমণ্ডল গ্রামের বাসিন্দদা মোসাঈদ মিয়া দুই বিয়ে করেছেন। শিশু মোরসালিন তার প্রথম স্ত্রীর সন্তান। তবে দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকেই মোসাঈদ তার প্রথম স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। গত দু’দিন আগে হঠাৎই মোসাঈদ প্রথম স্ত্রীর বাড়িতে হাজির হন। শনিবার ফুটবল খেলা জিতে পাওয়া ৪০ টাকা দিয়ে স্কুলের ফি দিতে বলায় মোরসালিনকে ধমকায় তার পিতা মোসাঈদ। রোববার বিকেলে ওই ৪০ টাকা দিয়েই সিগারেট ও ব্লেড কিনে আনতে শিশু মোরসালিনকে দোকানে পাঠায় মোসাঈদ। মোরসালিন বের হবার কিছুক্ষণ পর মোসাঈদও বাড়ি থেকে বের হন। কিন্তু তারা দুজনেই আর বাড়ি ফিরে আসেনি। রাতে বাড়ির পার্শ্ববর্তী স্থানেই মোরসালিনের গলায় রশি বেঁধে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ব্লেড দিয়ে গলার রগ কেটে দেন মোসাঈদ। শিশুপুত্রকে হত্যার পর পালানোর সময় স্থানীয়রা মোসাঈদকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায় জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে।

নাসিনগর থানার পরিদর্শক (ওসি) সাজিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মোসাঈদ হত্যার দায় স্বীকার করে জানায়’ প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর জন্য সে নিজের ছেলেকে হত্যা করেছে।’ মোসাঈদ একজন মাদকাসক্ত বলেও ওসি নিশ্চিত করেন।

যুবলীগ নেতা খুনের ২৪ দিনেও হয়নি আসামী গ্রেপ্তার, প্রতিবাদে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ-মানববন্ধন

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য শওকত হোসেন জসীমকে প্রকাশ্যে হত্যার ২৪ দিনেও ধরাছোঁয়ার বাইরে আসামীরা।  মৃত্যুকালে জসীম মেম্বারের দেয়া জবানবন্দীতে উল্লেখ করা খুনীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে বিরাজ করছে চরম ক্ষোভ। পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন সৃষ্টির পাশাপাশি মামলার ভবিষ্যৎ নিয়েও তারা শঙ্কিত নিহতের পরিবার। মামলার এজহারভুক্ত আসামীদের অবিলম্বে  গ্রেপ্তারসহ কঠোর শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে নিহতের পরিবারসহ বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।গতকাল সোমবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরে প্রেস ক্লাবের সামনে পালিত হওয়া বিক্ষোভ মিছিল প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচিতে নিহতের স্ত্রী-কন্যা-পুত্রসহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার শতশত বিক্ষুব্ধ নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। এর আগে তারা শহরের প্রধান প্রধান সড়কে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। কসবা উপজেলা যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জাফরুল ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যান্যেদের মধ্যে বক্তৃতা করেন বীরমুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, মেহারী ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি এস.এম শামীম, সাবেক ইউপি সদস্য আবুল খায়ের, আবদুল্লাহ, নিহতের স্ত্রী শিউলি আক্তার, মেয়ে জিদনি আক্তার, চাঁদনী আক্তার প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বর্বরোচিত এই খুনের সঙ্গে জড়িতরা নব্য আওয়ামী লীগ। তারা এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু হিসেবে পরিচিত। তাদের এসব কাজে বাধা হওয়ায় জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধি জসিমকে হত্যা করা হয়। হত্যার অন্যতম আসামী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন মুর্শিদকে (৪২) নব্য আওয়ামীলীগার আখ্যায়িত করে বক্তারা বলেন, তার পুরো পরিবার বিএনপি’র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বক্তারা এলাকার সংসদ সদস্য ও আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকের কাছে অনুরোধ করেন, এই মামলায় যাতে কোন রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ না হয়। পরে এলাকার নেতৃস্থানীয় লোকজন পুলিশ সুপারের সঙ্গে স্বাক্ষাত করে হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবী জানান।

উল্লেখ্য, গত ৫ জুলাই রাতে কসবা উপজেলার মেহারী ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের সদস্য-যুবলীগ নেতা শওকত হোসেন জসিমকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে এবং পায়ের রগ কেটে স্থানীয় যমুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে তালা দিয়ে ফেলে রাখা হয়।  সেখান থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে কুমিল্লা হাসপাতালে নেয়া হলেও তাকে বাঁচানো যায়নি।  পরদিন নিহতের ছোট ভাই মো. আলাউদ্দিন বাদী হয়ে কসবা থানায় যমুনা গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে জাকির হোসেন এবং তার ছোট ভাই মেহারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোশারফ হোসেন মুর্শিদসহ ১৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।  আসামীদের মধ্যে যমুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী ইয়ানুরকে ছাড়া গত ২৪ দিনে পু্লিশ আর কাউকেই গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এদিকে মৃত্যুর আগ মুুুুহূর্তে হাসপাতালে মুর্শেদসহ কয়েকজনের নামোল্লেখিত শওকতের জবানবন্দিমূলক একটি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এরপরও আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকায় নিহতের পরিবার শঙ্কিতের পাশাপাশি গোটা এলাকাবাসীই হয়ে ওঠেছেন ক্ষুব্ধ।

নবীনগরে বোনের হাতে ভাই নিহত, বোন গ্রেপ্তার

মোহাম্মদ হেদায়েতউল্লাহ্ নবীনগর  ।
ব্রাহ্মনবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ইব্রাহিমপুর পূর্ব পাড়ায় রবিবার (২১/৭) সকালে পারিবারিক কলহের জের ধরে আপন বোনের হাতে ভাই নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় পুলিশ বোন রুমা আক্তার (২৬) কে গ্রেপ্তার করেন। নিহত ভাইয়ের নাম সজল মিয়া (৩৪)।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভাই-বোন দুজনেই মস্তিষ্কের বিকৃত ছিল। শনিবার (২০/৭) রাতে ইব্রাহিমপুর পূর্বপাড়ার মৃত মিজানুর রহমানের মস্তিষ্ক বিকৃত ছেলে সজল মিয়া বিড়ি খাওয়ার জন্য তার মায়ের নিকট টাকা চায়। এই নিয়ে মায়ের সাথে তার ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে সজল মিয়া টাকার জন্য তার মাকে ঘুশি মারলে মস্তিষ্ক বিকৃত বোন রুমা আক্তার বাঁশ দিয়ে সজলের মাথায় আঘাত করে। বাড়ির লোকজন আহত অবস্থায় সজলকে নবীনগর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্ত্যবরত চিকিৎসক তাকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরন করেন। চিকিৎসারত অবস্থায় রবিবার সকালে তার মৃত্যু হয়।
ওসি রনোজিত রায় ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,  লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনায় তাঁর বোন রুমা আক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় লাগাতার পরিবহন ধর্মঘটের হুঁশিয়ারি

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
নিষিদ্ধ সত্ত্বেও মহাসড়কে চলে তিন চাকার যানবাহন। ঘটায় দুর্ঘটনা, দায় বর্তায় পরিবহন সেক্টরে। যত্রতত্র গড়ে ওঠা অবৈধ স্ট্যাণ্ডে ঘটায় জনদুর্ভোগ, দায় চাপে পরিবহন সেক্টরে। এসব অনিয়ম রোধসহ সাত দফা দাবী আদায়ে লাগাতার পরিবহন ধর্মঘটের হুঁশিয়ারি দিয়েছে জেলা সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। আজ শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন থেকে এই হুঁশিয়ারি দেন সংগঠনের নেতারা।

পরিবহন নেতাদের সাত দফা দাবী উত্থাপন এবং লিখিত বক্তব্যে জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হানিফ বলেন, আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে জেলার সড়ক-মহাসড়কে তিন চাকার যানবাহন চলাচল করছে। অদক্ষ চালকেরা এসব নিষিদ্ধ যানবাহন চালানোয় প্রায়শই দুর্ঘটনায় মানুষের জানমালের ক্ষতি হচ্ছে। পাশাপাশি সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা উপেক্ষা করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বিভিন্ন স্থানে সিএনজি চালিত অটোরিকশার অবৈধ স্ট্যাণ্ড তৈরি করে সৃষ্টি করা হচ্ছে যানজট। অার এসবের দায় চাপে পরিবহন সেক্টরের উপর। গত ৭ জুলাই জেলা সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ নেতারা জরুরি সভা করে সাত দফা দাবী বাস্তবায়ন না হলে ২৫ জুলাই ভোর ছয়টা থেকে লাগাতার পরিবহন ধর্মঘট কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেন। সাধারণ মানুষের জানমাল এবং পরিবহন সেক্টরের বৃহত্তর স্বার্থে সরকার এসব দাবী বাস্তবায়ন না করলে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ধর্মঘট শুরু হবে।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি হাজী জসীম উদ্দিন জমশেদ, সহ-সভাপতি কাজী আজাদ, জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান চৌধুরী, লোকাল বাস পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আবুল বাশার ও সাধারণ সম্পাদক নিয়ামত খানসহ অন্যান্য পরিবহন নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শ্রেণিকক্ষের অভাবে খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান

মোহাম্মদ হেদায়েতউল্লাহ্ নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে। শ্রেণিকক্ষ সংকটের কারণে বাধ্য হয়ে খোলা আকাশের নিচে ছাত্র ছাত্রীদের শ্রেণি পাঠদান করতে হয়।ব্রাহ্মণবাড়ীয়া নবীনগর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়ন কাজলিয়া গ্রামের ২৬ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন বিন্ডংটি দীর্ঘদিন যাবত জরাজীর্ণ ও পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। ৯৮২ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত সরকারি অর্থে অবকাঠামোগত কোন উন্নয়ন হয়নি। শ্রেণিকক্ষের তীব্র সংকটের কারণে কুমলমতী শিক্ষার্থী ছাত্র-ছাত্রীর লেখাপড়া হুমকির মুখে রয়েছে। বাধাগ্রস্ত হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম। আর বিষেশ করে ছাত্র -ছাত্রীদের বিদ্যালয়ে আশা যাওয়ার কোন রাস্থা নেই , রাস্থার জন্য বিপাকে কুমলমতী শিক্ষার্থীরা। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তাহমীনা আক্তার তিনি বলেন, ‘খোলা আকাশের নিচে সকালে ঠান্ডা ও দুপুরে প্রচন্ড গরম থাকে। এতে করে শিশু শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। খোলাস্থানে পাঠদান চলমান থাকায় ছাত্র -ছাত্রীরা মনোযোগ দিয়ে পাঠগ্রহণ করতে পারছে না। একটু বৃষ্টি হলেই ব্যহত হয় তাদের পাঠদান। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মাওলানা মাইনুদ্দীন মেম্বার জানান, পুরাতন বিন্ডংটি দীর্ঘদিন যাবত জরাজীর্ণ ও পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে তাই উক্ত ভবনের স্থলে নতুন ভবন নির্মাণ করেদেওয়ার জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

নবীনগরে মসজিদের জমি দখল করে বিল্ডিং নির্মানের অভিযোগ

মাসুম মিরজা, নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া নবীনগর উপজেলার বিটঘর ইউনিয়নের অন্তর্গত টিয়ারা গ্রামের উত্তরপাড়া বাইতুল নুর জামে মসজিদের ২১শতক জমি যার বিএস খতিয়ান নং- ৬৮৩, জেএল নং- ১৫১ টিয়ারা মৌজা এর উপর জোরপূর্বকভাবে দখল করিয়া একতলা বিশিষ্ট এল সিষ্টেম বিল্ডিং নির্মানের অভিযোগ উঠেছে এক স্হানীয় বাসিন্দা মোঃ বোরহান মিয়ার বিরুদ্ধে। মোঃ বোরহান মিয়া ঐ গ্রামের মরহুম সুরুজ মিয়ার ছেলে। অভিযোগে উল্লেখিত যে, উক্ত মসজিদ কমিটির সভাপতি হাজ্বী মোঃ ইউনুছ মিয়া ও সাধারন সম্পাদক মোঃ কামাল মিয়া, এবং মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন ১২ বছর আগে ২১ লক্ষ টাকার জমি ৬ লক্ষ টাকায় এই মহল্লার ২ মুরুবি মুখিক বিক্রিকরে দেই । তাই আমরা বারবার উক্ত মসজিদের জমি উদ্ধারের জন্য আপ্রান চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি , এক বছর পূর্বে জোর পূর্বক বিল্ডিং নির্মান করেন মোঃ বোরহান মিয়া। সমাজের সকল জনগন মসজিদের জমি উদ্ধারের চেষ্টা করলে মোঃ বোরহান মিয়া জানান ” ১২ বছর আগেই আমি টাকার বিনিময়ে উক্ত জমি দখল করে বিল্ডিং নির্মান করিয়েছি । তারা মসজিদে টাকা দিয়েছে কিনা তা আমি জানিনা। তবে সাংবাদিকগন সরে জমিনে গিয়ে মোঃ বোরহান মিয়ার সাক্ষাৎ পাইনি । টিয়ারা উত্তরপাড়া সমাজের পক্ষে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম মসজিদের জমি উদ্ধারের জন্য ১১/০ ইং রোজ বৃহস্পতিবার নবীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের নিকট আবেদন করেন।

ক্রেতা সেজে অভিযান চালিয় অস্ত্র-গুলি-মাদকসহ তিন কারবারীকে গ্রেপ্তার

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া:  ‘মাদক ক্রেতা’ সেজে ছদ্মবেশে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি রিভালবার, তিন রাউন্ড গুলি ও দুই হাজার ৭৯০ পিস ইয়াবাসহ তিন মাদক কারবারিকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

বুধবার দিবাগত গভীররাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ধরাভাঙ্গা এলাকায় অভিযান চালিয়ে র‌্যাব-১৪ এর ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা তাদের আটক করেন। আটককৃতরা হলেন জয়নাল আবেদীন ওরফে ড্রাম বাবু (৩৬), মো. সাদেক (২২) এবং মো. আব্দুল্লাহ্ (১৯)। তাদের সকলের বাড়ি ধরাভাঙ্গা এলাকায়।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে র‌্যাবের ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানি কমাণ্ডার রফিউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়ের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ক্রেতা সেজে ধরাভাঙ্গা এলাকায় ড্রাম বাবুর বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব সদস্যরা। অভিযানকালে ওই তিন মাদক কারবারিকে আটক করা হয়। তাদের জিম্মা থেকে একটি বিদেশি রিভলবার, তিন রাউন্ড গুলি এবং দুই হাজার ৭৯০ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। এছাড়াও তাদের কাছ থেকে মাদক বিক্রির আড়াই হাজার টাকা জব্দ করা হয় বলে জানান এই র‌্যাব কর্মকর্তা। সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের ভৈরব ক্যাম্পের জ্যেষ্ঠ সহকারি পরিচালক চন্দন দেবনাথ উপস্থিত ছিলেন।

Play
Play
previous arrow
next arrow
Slider

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথে একটি বড় বাধা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছিল। এই ধারার কারণে বহু সাংবাদিককে হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে অনেক মামলা হয়েছে। অনেককে কারাগারেও যেতে...

চন্দনাইশ প্রতিনিধি : সদ্য সমাপ্ত ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চন্দনাইশ উপজেলা থেকে টানা তৃতীয়বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুল জব্বার চৌধুরী তৃতীয় মেয়াদের জন্য শপথ গ্রহণ শেষে চট্টগ্রাম থেকে চন্দনাইশে ফিরে...

previous arrow
next arrow
ArrowArrow
Slider

  ফারা মাহমুদা চৌধুরী (শিল্পী) মানবদরদী ও মানবহিতৈষি ব্যক্তিত্ব হিসেবে অতিথিদের হাত থেকে সম্মাননা পদক গ্রহণ করছেন।   ইমদাদুল হক তৈয়বঃ ‘মানুষ মানুষের জন্য’ এই নৈতিকতাবোধ থেকেই বুকে নীতি আদর্শ...

Archives

Jan0 Posts
Feb0 Posts
Mar0 Posts
Apr0 Posts
May0 Posts
Jun0 Posts
Jul0 Posts
Aug0 Posts
Nov0 Posts
L0go

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি