সাংবাদিকতায় আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন: ০১৭১১৫৭৬৬০৩
  • সকাল ১১:৫২ | ২৯শে মার্চ, ২০২০ ইং , ১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

Monthly Archive :সেপ্টেম্বর ২০১৯

পুকুরে মিললো নিখোঁজ গৃহবধূর মরদেহ

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজের কয়েক ঘন্টা পর পুকুরে মিললো গৃহবধূ সুরমা বেগমের (২৫) মরদেহ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে পুলিশ বাড়ির নিকটবর্তী পুকুর থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। নিহত সুরমা বেগম ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের কালিসীমা গ্রামের কৃষক মমিন মিয়ার স্ত্রী। পরিবারের অভিযোগ, তাকে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতের পরিবার, এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার সকালে নিজের বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয় এক সন্তানের জননী সুরমা বেগম।  অনেক খোঁজাখুঁজিতেও তার হদিস পাচ্ছিলোনা পরিবারের সদস্যরা।  কয়েকঘন্টা পর বাড়ির পাশের একটি পুকুরে গৃহবধূ সুরমা বেগমের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয় লোকজন। পরে বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করা হয়। স্থানীয় সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। নিহতের পরিবারের দাবী, প্রতিপক্ষীয়রা সুরমা বেগমকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহের লক্ষ্যেই লাশ পুকুরে ফেলে রাখে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদক (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ঘটনাটির রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। ‘

সরাইলে গ্রাম্য আধিপত্যের সংঘর্ষে বৃদ্ধ নিহত

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে গ্রাম্য আধিপত্যের জেরে দু’পক্ষের মধ্যে দুই ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে সত্তরোর্ধ বৃদ্ধ শামছু মিয়া নিহতসহ আহত হয়েছে আরো অন্তত ৩০ জন। পরবর্তী সংঘাত এড়াতে এলাকায় মোতায়েন রয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

আজ শনিবার সকালে জেলার সরাইল উপজেলার  নোয়াগাঁও ইউনিয়নের বুড্ডা গ্রামের অলি আহাদ মেম্বার ও শামছু মিয়ার লোকদের মধ্যে টানা দুই ঘন্টাব্যাপী চলে এই সংঘর্ষ। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে পাঠায় মর্গে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ১০ জনকে ভর্তি করা হয়েছে জেলা সদর হাসপাতালে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বোড্ডা গ্রামের ইউপি সদস্য (মেম্বার) অলি আহাদ এবং শামছু মিয়ার মধ্যে এলাকার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিরোধ চলে আসছিলো। এসবের জের ধরেই গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় আহাদ গ্রুপের লোকজন শামছু গ্রুপের লোকজনদের ওপর আক্রমণ করে। পরে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। টানা দুই ঘণ্টা ধরে চলমান সংঘর্ষে গুরুতর জখম হয়ে বৃৃদ্ধ শামছু মিয়া ঘটনাস্থলেই মারা যান। এছাড়াও সংঘর্ষে আহত হন উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রবি রহমান (৫৫), এরশাদ মিয়া (৩৭), সায়েদুল মিয়া (২২), আলাল উদ্দিন (৪০), আব্দুর রহিম (৬০), শেখ রাকিব (৪০), শেখ হোসেন (৪২), জাবেদ মিয়া (৩৫), শরীফুল ইসলাম (২০) এবং বাবুল মিয়া (২০) নামের ১০ জনকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকিদেরকে দেয়া হয়েছে প্রাথমিক চিকিৎসা। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে সরাইল থানা পু্লিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায় জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে। পরবর্তী সংঘাত এড়াতে এলাকায় মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ।

সহকারি পুলিশ সুপার (সরাইল সার্কেল) মকবুল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরবর্তী সংঘাত এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে রাখা হয়েছে।’

মাদারীপুরের চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী গ্রেফতার

মোঃ ফারুক হোসেন ।। সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা হচ্ছে ধর্ষণ এবং হত্যা। প্রায় প্রতিদিনই গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরনের বিভিন্ন ঘটনা দেশবাসীর নজরে আসছে। দ্রুততম সময়ের মাঝে ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন এবং জড়িতদের গ্রেফতারে র‌্যাব সবসময় জোড়ালো ভূমিকা পালন করে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৮, বরিশাল এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল ১০ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ১০ টার সময় মাদারীপুর জেলার ডাসার থানাধীন কাজীবাকৈ ইউনিয়নস্থ মেদাকুল বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মাদারীপুর জেলার সদর মডেল থানার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন মামলার এজাহার নামীয় একমাত্র পলাতক আসামী রনি মজুমদার (২০), পিতা-হারুন মজুমদার, সাং-হরিকুমারিয়া, থানা- মাদারীপুর সদর, জেলা-মাদারীপুরকে গ্রেফতার করে। ঘটনার বিবরনে জানা যায় যে, অভিযুক্ত রনি মজুমদার (২০) গত ৮ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ৯টা ৪৫ মিনিটের সময় মাদারীপুর জেলার সদর থানাধীন পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকার চতুর্থ শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী ছদ্মনাম রাজিয়াকে (৯) তার নিজ বাসার সামনে থেকে আইসক্রিম খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে মাদারীপুর পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকার জনৈক মৃত মান্নান মোল্লার একতলা ভবনের ছাদের উপর নিয়ে যায় এবং উক্ত স্কুল ছাত্রীকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় উক্ত স্কুল ছাত্রীর আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে অভিযুক্ত রনি মজুমদার (২০) ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায় এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চক্ষু ফাঁকি দিয়ে নিজেকে আত্মগোপন করে থাকে। এ সংক্রান্তে ভিকটিমের পরিবার বাদী হয়ে মাদারীপুর জেলার সদর মডেল থানার মামলা নং-১৪ তারিখ ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ধারা ৯(১)৩০, ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০০৩) এবং উক্ত অভিযুক্তকে গ্রেফতারের জন্য র‌্যাবের সহায়তা কামনা করলে  র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৮, বরিশাল এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল ১০ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ১০টার সময় মাদারীপুর জেলার ডাসার থানাধীন কাজীবাকৈ ইউনিয়নস্থ মেদাকুল বাজার এলাকা অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত রনি মজুমদার (২০) কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে মাদারীপুর জেলার সদর মডেল থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন ।

 

বিশ্বের শীর্ষ নারী নেত্রীদের তালিকায় শেখ হাসিনা

বিশ্বের শীর্ষ নারী শাসকের তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকারপ্রধান হিসেবে তিনি ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী, যুক্তরাজ্যের মার্গারেট থ্যাচার এবং শ্রীলঙ্কার চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গার রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন।

গতকাল সোমবার উইকিলিকসের এক জরিপের তথ্যের ভিত্তিতে ভারতীয় বার্তাসংস্থা ইউনাইটেড নিউজ অব ইন্ডিয়া এ তথ্য জানিয়েছে।

উইকিলিকসের জরিপে বলা হয়েছে, ইন্দিরা গান্ধী ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১৫ বছরের বেশি ক্ষমতায় ছিলেন। মার্গারেট থ্যাচার ব্রিটেন শাসন করেছেন ১১ বছর ২০৮ দিন। আর চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্ট দু’ভাবেই ক্ষমতায় ছিলেন ১১ বছর ৭ দিন।

জরিপ অনুসারে, ১৯৯৭ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত ২০ বছর ১০৫ দিন দেশ শাসন করেছেন সেন্ট লুসিয়ার গভর্নর জেনারেল ডেম পারলেট লুইজি। তিনি সবচেয়ে বেশি দিন ক্ষমতায় থাকা নারী। আইসল্যান্ডের ভিগডিস ফিনবোগডোটিয়ার ক্ষমতায় ছিলেন ১৯৮০ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত প্রায় ১৬ বছর। তবে বিশ্ব রাজনীতিতে এ দুই নেতা খুব বেশি পরিচিত ছিলেন না।

যুক্তরাষ্ট্রীয় দেশের মধ্যে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল আছেন সবার শীর্ষে। তিনি ২০০৫ সাল থেকে এখনো ক্ষমতায় রয়েছেন।

এদিকে টানা তৃতীয়বারসহ চতুর্থবারের মতো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। প্রথম মেয়াদে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন তিনি। পরে ২০০৮ সালে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে ফের প্রধানমন্ত্রী হন শেখ হাসিনা। এরপর ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনেও নিরঙ্কুশ জয় পায় তার দল আওয়ামী লীগ।

এ বছরের ৭ জানুয়ারি চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন শেখ হাসিনা। ইতোমধ্যে এ পদে ১৫ বছরেরও বেশি সময় পার করে ফেলেছেন তিনি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাংবাদিকের মুক্তির দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নপ্রতিনিধি: স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলে গাজী টেলিভিশন (জিটিভি)’র ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক জহির রায়হানের মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।
আজ বুধবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সামনে জেলার নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আয়োজনে মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন কৃষ্ণনগর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান। বক্তব্য রাখেন বীরগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হোসেন সরকার, বাইশমৌজা বাজার কমিটির সভাপতি হাজি আরিজ মিয়া, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজি ধন মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা অলি আহমেদ, জহির রায়হানের ছোট ভাই মাজহারুল ইসলাম প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, স্থানীয় একটি কুচক্রী মহলের ইন্ধনে তাকে খুনের মামলায় জড়ানো হয়েছে।  এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছে বীরগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। দাঙ্গাবাজ এই চেয়ারম্যানকে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি থেকে তিন মাসের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছিলো। যেখানে হত্যাকাণ্ড হয়ে সেটা জহিরের গ্রামের পাশের ইউনিয়ন। তাকে পরিকল্পিতভাবে আসামী করা হয়েছে। এই মামলা থেকে জহির রায়হানকে অব্যাহতি প্রদান করে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়া হোক। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
উল্লেখ্য, নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের গৌরনগর গ্রামের জোড়া খুনের মামলায় গত ৬ সেপ্টেম্বর জেলা শহরের কাউতলি থেকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) জহির রায়হানকে গ্রেপ্তার করে। তিনি ওই মামলার ৯৩ নম্বর আসামী।

আশুগঞ্জ সার কারখানা ১১৩ দিন মেরামতে চালু থাকলো মাত্র ৮ দিন!

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানা। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। যান্ত্রিক ত্রুটিজনিত কারণে উৎপাদন বন্ধের পর টানা ১১৩ দিন ধরে মেরামতে চালু হলেও সচল থাকে মাত্র ৮ দিন!  প্রায় চার মাস সময় ধরে মেরামত শেষে চালু হওয়ার ৮ দিন পর কারখানায় ফের ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, দীর্ঘ চার মাস বন্ধের পর গত ২ সেপ্টেম্বর সোমবার কারখানাটিতে ইউরিয়া সার উৎপাদন শুরু হয়। কর্মচাঞ্চল্যতা ফিরে কর্মকর্তা-শ্রমিক-কর্মচারিসহ সংশ্লিষ্ট সকলের মাঝে। কিন্তু এই কর্মচাঞ্চল্যতার খুব বেশি স্থায়িত্ব হয়নি। মাত্র ৮ দিনের মাথাতেই গত ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার দিবাগত রাত থেকে কারখানায় ইউরিয়া সার উৎপাদন অাবারও বন্ধ হয়ে পড়ে। পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে কারখানা কর্তৃপক্ষ। ইতিপূর্বে বিগত ১২ মে দুপুরে মেরামত কাজের জন্য কারখানাটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিলো। এরপর থেকেই কারখানাটি সচল করতে চলতে থাকে মেরামত কার্যক্রম। অার তা চলে টানা ১১৩ দিন। এরপরই সচল হয়েছিলো দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী এই অাশুগঞ্জ সার কারখানা। এদিকে কারখানা বন্ধের কারণে প্রত্যেকদিন এক কোটি ৬৮ লাখ টাকা মূল্যমানের ১২শ’ মেট্রিকটন ইউরিয়া সার উৎপাদন কার্যক্রম ব্যাহত হবে। তবে ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ থাকলেও কারখানার কমাণ্ড এরিয়াভুক্ত ছয় জেলায় সার সরবরাহে কোনোরকম ব্যাঘাত হবে না বলে জানানো হয়েছে।

টানা প্রায় চার মাস মেরামত কাজ চালিয়ে কারখানাটি চালুর পর মাত্র মাত্র ৮ দিনের মাথায় ফের বন্ধ হওয়া নিয়ে সচেতন মহলে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। নাম প্রকাশ না করার স্বার্থে কারখানা সংশ্লিষ্ট একাধিকজন বলেন, বিসিঅাইসি নিয়ন্ত্রিত দেশের বৃহত্তম এই কারখানাটি বন্ধ- চালু হবার বিষয়াসয় এখন অনেকটা হরহামেশা ব্যাপার। এসব নিয়ে রহস্য অার ধোয়াশা থাকাটা সাধারণ মানুষের কাছেও অনেকটাই স্পষ্টতর। এসবের কারণ অনুসন্ধান অাবশ্যক।

আশুগঞ্জ সার কারখানার মহা-ব্যবস্থাপক (কারিগরি) আব্দুল্লাহ আল বাকী জানান, ‘চার মাস পর কারখানাটি চালু হলেও এর অ্যামোনিয়া প্ল্যান্টের স্টোরেজ কমে গেছে। স্টোরেজ বাড়ানোর জন্য সোমবার রাতে কারখানার ওই অংশটুকুর কাজ বন্ধ করে দেয়ার কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকে ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। তবে সবকিছু শেষে উৎপাদনে ফিরতে অন্তত তিন-চারদিন সময় লাগতে পারে। বর্তমানে কারখানায় ৭২ হাজার মেট্রিকটন ইউরিয়া সার মজুদ রয়েছে। যার কারণে কারখানার কমান্ড এরিয়া ভুক্ত এলাকায় সার সঙ্কটের কোনো সম্ভাবনা নাই।’

শরীয়তপুরে আঠারো ঘন্টার অভিযানে অপহরনকৃত শিশু উদ্ধার

 

মোঃ ফারুক হোসেন ।। টানা আঠারো ঘন্টা অভিযান পরিচালনা করে, আজ মঙ্গলবার সকালে আব্দুস নুর শিশির (৮) নামের এক অপহরনকৃত শিশুকে গোসাইর হাট এলাকার কেদারপুর থেকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করেছে পালং থানা পুলিশ।

অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, শরীয়তপুরের তুলাসার এলাকার বাসিন্দা ছাত্তার মাস্টারের ছেলে আব্দুস নুর শিশির (৮) কালেক্টরেট কিশলয় কে.জি স্কুলের নার্সারী ক্লাসের ছাত্র। গতকাল সোমবার বেলা দুইটার দিকে খেলতে গিয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। এক পর্যায়ে অপহরনকৃত শিশুর বাবার কাছে মুক্তিপনের জন্য ফোন আস। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট পালং থান পুলিশকে অবহিত করা হলে, পুলিশ অভিযানে নামেন এবং আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে অপহরন কারির মোবাইল নাম্বার ট্রাকিং করা হয়। ট্রাকিং এর সুত্র ধরে গোসাইর হাট এলাকার কেদারপুর নামক স্থানের নদীর পার থেকে শিশু শিশিরকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে পালং থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে পালং থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) আতিয়ার রহমান বলেন, আমরা অভিযোগ পাওয়ারপর ওসি স্যার, এস.আই গুলজারসহ একটি টিম অভিযানে নামি। আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করে অপহরন কারির স্থান সনাক্ত করতে সক্ষম হই। টানা আঠারো ঘন্টা অভিযান পরিচালনা করার পর, গোসাইরহাটের কেদারপুর নদীর পার থেকে শিশু শিশিরকে উদ্ধার করি।

পালং থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আসলাম উদ্দিন বলেন, শিশু অপহরনের অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা অভিযান পরিচালনা করি। প্রযুক্তি ব্যবহার করে শিশুটিকে গোসাইরহাট থেকে উদ্ধার করেছি। এখনো কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। আরো কিছু বিষয় আছে তদন্তের সার্থে এখন তা প্রকাশ করা যাচ্ছে না।

ক্রমশই কমছে আখাউড়া স্থলবন্দরের পণ্য রপ্তানি

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
দেশের অন্যতম বৃহৎ ও শতভাগ রপ্তানিমুখী স্থলবন্দর হওয়া সত্ত্বেও অাখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ক্রমশই কমছে ভারতে পণ্য রপ্তানির পরিমাণ। বিগত ১৯৯৪ সালে প্রতিষ্ঠিত এই স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে মাছ, পাথর, সিমেন্ট, প্লাস্টিক ও ভোজ্য তেলসহ প্রায় অর্ধশতাধিক পণ্য হতো রপ্তানি। শ্রমিকদের কর্মচাঞ্চল্যতায় মুখর থাকতো পুরো স্থলবন্দর এলাকা। কিন্তু ত্রিপুরার সঙ্গে অন্যান্য রাজ্যের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নতির কারণে এখন সেই কর্মচাঞ্চল্যতায় ভাটা পড়েছে। আগের মতো বাংলাদেশ থেকে পণ্য নিতে চান না ভারতীয় ব্যবসায়ীরা। ফলে প্রতি অর্থবছরেই কমছে পণ্য রপ্তানির পরিমাণ।

বর্তমানে হাতেগোনা কয়েকটি পণ্য স্বল্প পরিমাণে রপ্তানি হচ্ছে আগরতলায়। এ অবস্থায় স্থলবন্দরে ব্যবসায়িক কার্যক্রম টিকিয়ে রাখতে ভারত থেকে চাহিদা সম্পন্ন সকল বৈধ পণ্য আমদানির অনুমতি দিতে সরকারের কাছে দাবী জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এ অনুমতি দিলে ব্যবসায়ীরা যেমন লাভবান হবেন, সরকারও পাবে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নির্ধারিত কিছু পণ্য আমদানির অনুমতি থাকলেও প্রতিষ্ঠার পর থেকে আখাউড়া স্থলবন্দর ও ব্যবসায়ীরা রপ্তানি বাণিজ্যের মাধ্যমেই টিকে আছে। বিগত ২০১০ সালের ১৩ আগস্ট পূর্ণাঙ্গ বন্দর হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার পর আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম অনেক বেশি সম্প্রসারিত হয়। প্রতিদিন কয়েকশ’ পণ্যবাহী ট্রাক আগরতলা প্রবেশ করতো। এর মধ্যে পাথর ও মাছের ট্রাকই ছিলো সবচে’ বেশি। কিন্তু ত্রিপুরা রাজ্যের সঙ্গে এখন অনান্য রাজ্যগুলোর সড়ক ও রেল যোগাযোগ উন্নতির ফলে বাংলাদেশ থেকে পণ্য আমদানি কমিয়ে দিয়েছেন আগরতলার ব্যবসায়ীরা। আমাদানি খরচ বেশি হওয়ায় তারা নিজেদের দেশের অন্যান্য রাজ্য থেকেই পণ্য সংগ্রহ করছেন। সবচে’ বেশি চাহিদা সম্পন্ন পাথরও এখন শিলং থেকে সংগ্রহ করা হচ্ছে। আর নানা অজুহাতে ত্রিপুরায় মাছ রপ্তানি কার্যক্রম থমকে আছে দীর্ঘদিন ধরেই। বর্তমানে অাগরতলায় কেবলই  তিন-চারটি পণ্য রপ্তানি হয়ে থাকে, এর পরিমাণও অনেক কম। এ অবস্থা চলতে থাকলে যেকোনো সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে অাখাউড়া স্থলবন্দরের ব্যবসায়িক কার্যক্রম। অার এতে করে বেকার হয়ে পড়বেন বন্দরের ব্যবসায়ী-শ্রমিকরা।

আখাউড়া স্থল শুল্ক স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, গত ২০১৭-১৮ অর্থবছরে আাখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে দুই লাখ ১১ হাজার ৫১৭ টন এবং ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দুই লাখ ৯ হাজার ৯৬২ টন পণ্য ত্রিপুরায় রপ্তানি করা হয়েছে। ইলিশ, চিংড়ি ও শিং মাছ ব্যতীত সকল প্রকার বৈধ পণ্য রপ্তানির অনুমতি রয়েছে। এসবের বিপরীতে অামদানির অনুমতি রয়েছে গবাদি পশু, মাছের পোনা, তাজা ফলমূল, গাছগাছড়া, বীজ, চাল, গম, পাথর, কয়লা, রাসায়ানিক সার, পিঁয়াজ, মরিচ, রসুন, আদা, শুঁটকি, সাতকড়া ও জিরাসহ ৩১টি পণ্য। তবে ব্যবসায়ীরা এসব পণ্যের বিপরীতে বাংলাদেশে চাহিদাসম্পন্ন পণ্য আমদানির অনুমতি চান। কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, দিন দিন পণ্য রপ্তানির পরিমাণ কমছেই। আগরতলার ব্যবসায়ীরা আগের মতো পণ্য নিচ্ছেন না। তারা এখন কম খরচে নিজ দেশের অন্য রাজ্য থেকেই পণ্য সংগ্রহ করছেন। ব্যবসা কমে যাওয়ায় বন্দরের ব্যবসায়ী-শ্রমিকদের মাঝে নেই অাগেকার সেই কর্মচাঞ্চল্যতা। যদি সব ধরণের বৈধ পণ্য আমদানির অনুমতি না দেয়া হয়, তাহলে বন্দরের ব্যবসায়ীক কার্যক্রম টিকিয়ে রাখাই অসম্ভব হবে। আখাউড়া স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফোরকান আহমেদ খলিফা বলেন, ‘আমদানির অনুমতি থাকা পণ্যগুলো আমাদের এখানে চাহিদা নেই। তাই আমরা চাহিদা সম্পন্ন ৩০টি পণ্য নির্ধারণ করে আমদানির অনুমতির দাবী জানিয়েছি। এই অনুমতি দেয়া হলে বন্দরের আগের কর্মচাঞ্চল্যতা অাবারও ফিরে আসবে।’

আখাউড়া স্থল শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা মো. হারুনুর রশীদ বলেন, ‘রপ্তানির পরিমাণ প্রত্যেক অর্থবছরেই তুলনামূলকভাবে কমছে। চলতি অর্থবছরেও পরিমাণ কমই মনে হচ্ছে। রপ্তানির পরিমাণ বাড়াতে হলে দু’দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে সমন্বয় বাড়াতে হবে। পাশাপাশি আমদানির বিষয়েও গুরুত্ব দিতে হবে।’

মাদারীপুর সদর হতে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক

 

মোঃ ফারুক হোসেন: র‌্যাব-৮, সিপিসি-৩ মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ আভিযানিক দল কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম এর নেতৃত্বে গত শনিবার ৭ সেপ্টেম্বর রাত্র আনুমানিক ৯.৩০ মিনিটের সময় মাদারীপুর জেলার সদর থানাধীন চর মুগুরিয়া গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে মোঃ আমিজ তালুকদার (২৯), পিতাঃ মৃত মান্নান তালুকদার, মাতাঃ মোছাঃ সালেহা বেগম, সাং-মধ্য পেয়ারপুর, থানাঃ মাদারীপুর সদর, জেলাঃ মাদারীপুরকে ইয়াবাসহ হাতে নাতে আটক করে। এসময় আটককৃত আসামীর নিকট হতে ২৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলয়েট উদ্ধার করেন।

আটককৃত আসামীকে র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদ ও স্থানীয় লোকজনের নিকট হতে জানা যায় যে, ধৃত আসামী একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী এবং সে দীর্ঘদিন যাবৎ মাদরীপুর জেলার সদর থানা এলাকায় ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের অবৈধ মাদকদ্রব্য বিক্রয় কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। ধৃত আসামীকে উদ্ধারকৃত ইয়াবাসহ মাদরীপুর জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়। এ সংক্রান্তে মাদরীপুর জেলার সদর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা রয়েছে।

 

মোবাইলে লুডু খেলার টাকা না দেয়ায় যুবক খুন

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
বাজি ধরে মোবাইলে লুডু খেলার টাকা নিয়ে মারামারি। এক পর্যায়ে ট্রাকে থাকা রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করা হয় ট্রাকের হেলপার সবুর মিয়াকে। ঘটনার সাথে জড়িত সুজন মিয়া ও রমজান মিয়া অাদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান।

গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় দিকে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে পুলিশ সুপার এই তথ্য জানান। নিহত সবুর মিয়া (২০) জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার চরচারতলা গ্রামের মৃত রহমত আলীর পুত্র। গত ৫ জুন সকালে চরচারতলা গ্রামের সারকারখানা সড়কে একটি ট্রাক থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের মা হনুফা আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে আশুগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান জানান, মামলাটি প্রথমে আশুগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শীবাস চন্দ্র দাস তদন্ত করেন। পরবর্তীতে আসামি গ্রেপ্তার ও হত্যাকাণ্ডের মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য মামলাটি জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) এসআই মো. সোহেল কামালের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ক্লুলেস এই হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনের অনুসন্ধানে জানা যায়, চরচারতলা গ্রামের নিলু মিয়ার পুত্র মো. সুজন (২৮) এবং একই গ্রামের মো. মান্নানের পুত্র মো. রমজান (২০) হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। গত ৬ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার পঞ্চবটি এলাকা থেকে মো. সুজনকে এবং ৭ সেপ্টেম্বর নরসিংদীর বেলাব থানার নারায়ণপুর গ্রাম থেকে মো. রমজানকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তারা হত্যকাণ্ডে নিজেদের সম্পৃক্ত থাকার বিষয়ে অাদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেন।

অাদালতে প্রদত্ত জবানবন্দীতে তারা জানান, নিহত সবুর প্রায়শই সুজন এবং রমজানের সঙ্গে বাজি ধরে মোবাইল ফোনে লুডু গেম খেলতো। গত ৪ জুন দিবাগত রাত সাড়ে ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে রমজান ও সুজনের সঙ্গে ট্রাকে বাজিতে লুডু গেম খেলতে বসেন সবুর। রাত সাড়ে তিনটা থেকে চারটার দিকে লুডু খেলায় সবুরের কাছে হেরে যান সুজন ও রমজান। পরে সুজন ও রমজান খরচের জন্য সবুরের কাছে কিছু টাকা চান। কিন্তু সবুর টাকা না দিলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি এমনকি মারামারি হয়। এরই একপর্যায়ে সবুরকে ট্রাকের ভেতরে থাকা রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. আলমগীর হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর দপ্তর) মো. আবু সাঈদ, অতি. পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) মেহেদী হাসান, বিশেষ শাখার সহাকারি পুলিশ সুপার মো. আলাউদ্দিন চৌধুরী ও ডিআইও-১ ইমতিয়াজ আহম্মেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Play
Play
previous arrow
next arrow
Slider

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথে একটি বড় বাধা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছিল। এই ধারার কারণে বহু সাংবাদিককে হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে অনেক মামলা হয়েছে। অনেককে কারাগারেও যেতে...

    ১৭ই মার্চ, ১৯২০ সালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় শেখ লুৎফুর রহমান এবং সায়রা বেগমের ঘরে জন্ম নেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ছয় ভাইবোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। গোপালগঞ্জ...

previous arrow
next arrow
ArrowArrow
Slider

  …..ইঞ্জিনিয়ার চৌধুরী নেসারুল হক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বরাট জনকল্যাণ ফাউন্ডেশন   জীবনের ক্ষুধা, তৃষ্ণা ছাড়াও, মানুষ এক কাল্পনিক জগতের চাহিদায় যেন সদা ব্যাকুল। কল্পনা যখন বাস্তবে শিল্পসম্মতভাবে প্রকাশ পায় তখন...

Archives

Apr0 Posts
May0 Posts
Jun0 Posts
Jul0 Posts
Aug0 Posts
Sep0 Posts
Oct0 Posts
Nov0 Posts
Dec0 Posts
Jan0 Posts
Feb0 Posts
Mar0 Posts
Apr0 Posts
May0 Posts
Jun0 Posts
Jul0 Posts
Aug0 Posts
Nov0 Posts
L0go

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি